অনলাইন ব্যবসা শুরু করুন অল্প টাকায় - Graphic School

Blog

অনলাইন ব্যবসা শুরু করুন অল্প টাকায়

হ্যালো,

বাংলাদেশ ডিজিটাল হচ্ছে, বারছে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার । এরই সাথে বেড়ে চলছে অনলাইন ব্যবসার প্রসার। কেউ ব্যবসা শুরু করছে ফেসবুক গ্রুপ, পেইজ আবার কেউ শুরু করছে ওয়েবসাইট তৈরি করে। বাংলাদেশে এমন অনেক ছোট ওয়েবসাইট বা ফেসবুক পেইজ আছে যারা অনেক ভালো বিজনেস করছে।

ব্যবসা যখন অনলাইনে তাতে ই-কমার্স থাকবে না তা কি হয়। ই-কমার্সের উদাহরণ যদি দিতে হয় তাহলে বলতে পারি বিক্রয় ডট কম এর নাম। তাহলে আপনারা ভাববেন ওদের এত বড় অফিস, এত কর্মকর্তা, প্রচুর ইনভেস্টমেন্ট । আমাদের কে দিয়ে ই-কমার্সে হবে না। তাহলে এটা আপনাদের ভুল ধারনা। মাত্র ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে শুরু করতে পারেন অনলাইন বিজনেস।

 

ই-কমার্স ব্যবসার গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ঃ

মার্কেট বিশ্লেষণ অনলাইন বা ই-কমার্স ব্যবসায় খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বড় প্রতিষ্ঠান যেমন অনেক প্রোডাক্ট বা সেবা নিয়ে ব্যবসায় শুরু করে আপনার তা করার প্রয়োজন নেই। একটি প্রোডাক্ট নিয়ে শুরু করুন কিন্তু প্রোডাক্টটি হতে হবে ইউনিক। মার্কেট বিশ্লেষণ করে খুঁজে বের করুন কোন প্রোডাক্টটি ইউনিক ও কোন প্রোডাক্টটি মানুষ বেশি কিনছে। এরপর আপনাকে ভেবে বের করতে হবে কারা হবে আপনার ক্লায়েন্ট ছেলে না মেয়ে।

মার্কেট বিশ্লেষণ করে এটা বলতে পারি ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সের ছেলে ও মেয়ে ক্লায়েন্টরা তাদের প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টি অনলাইন মার্কেট থেকে কিনে থাকে। যদিও ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা প্রোডাক্ট বেশি কিনে থাকে। কিন্তু ছেলেরাও কম প্রোডাক্ট কেনে না। আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে প্রোডাক্ট কোয়ালিটি। এটি মোস্ট ইম্পরটেন্টে । বিজনেস এক দিনের জন্য নয়। তাই কোয়ালিটিহহীন কোন প্রোডাক্ট নিয়ে ব্যবসায় শুরু করবেন না। ক্লায়েন্টকে আপনি যদি কোয়ালিটি সম্পূর্ন প্রোডাক্ট ডেলিভারি দিতে পারেন ক্লায়েন্ট আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কে ভালো রিভিউ দিবে। এভাবেই আপনার বিজনেস একদিন অনেক বড় হবে। যেমন হয়েছে বিক্রয় ডট কমের।

 

কিভাবে বিজনেস শুরু করবেন ?

মার্কেট বিশ্লেষণ ভালোভাবে করার পর আপনার প্রধান কাজ হবে প্রোডাক্ট কিনে আনা। হোল সেলের মাধ্যমে আপনি চায়না থেকে প্রোডাক্ট কিনুন। তবে এটি একটু ঝামেলা মনে হবে আপনার কাছে। আপনি চাইলে যারা এই হোল সেলের মাধ্যমে প্রোডাক্ট কিনেছে তাদের কাছে থেকে নিতে পারেন । এখন বিষয় হচ্ছে আপনাকে ১/২ আইটেমের প্রোডাক্ট কিনতে হবে। প্রোডাক্ট আইটেম বেশি না করে যে প্রোডাক্টি কিনেছেন সেটি বেশি পরিমাণ কিনুন।

 

মার্কেটিং

মার্কেটিং হচ্ছে অনলাইন বা ই-কমার্স ব্যবসায় মূল হাতিয়ার। ধরুন আপনার দোকান আছে প্রোডাক্ট আছে কিন্তু কেউ জানে না। তাহলে কি আপনার প্রোডাক্ট সেল হবে? তাই অনলাইন বা ই-কমার্স ব্যবসায় মার্কেটিং করতে হবে। মার্কেটিং এর জন্য প্রথমে আপনাকে ওয়েবসাইট প্রয়োজন নেই আপনি ফেইসবুক পেজ তৈরি করে প্রোডাক্টি পোষ্ট করুন। আপনার ফ্রেন্ডদের সাথে পোষ্টটি শেয়ার করুন, তাদের বলুন আপনার পোষ্টটি অন্যদের কাছে শেয়ার করতে।

দেখবেন কিছু দিনের মধ্যে অনেক কয়টি প্রোডাক্ট সেল হয়ে গেছে এবং প্রোডাক্টটির পেমেন্টও আপনার হাতে এসেছে। এখন আপনি ফেইসবুক পেজে প্রোডাক্টটির এড দেন। ফেইসবুকে এড দিতে তেমন বেশি ব্যয় হয় না। তবে ফেইসবুক পেজে এড দিলে আপনার প্রোডাক্ট সেল দিন দিন অনেক বেশি হতে থাকবে।

 

আপনার ফেইসবুক পেজে প্রোডাক্ট সেলের জন্য এড দিতে এখানে ক্লিক করুন

 

প্রোডাক্ট ডেলিভারি

 অনলাইন বা ই-কমার্স ব্যবসায় মূলত অনলাইনে সম্পূর্ন হয় তাই এই ব্যবসায় একটি ছোট সমস্যা হচ্ছে প্রোডাক্ট ডেলিভারি। তবে এটা কোন বড় সমস্যা না । কারণ এখন বাংলাদেশে অনেক প্রতিষ্টানের মাধ্যমে প্রোডাক্ট ডেলিভারি করা যায়। বিভিন্ন কুরিয়ার আছে যারা প্রোডাক্ট হোম ডেলিভারি দিয়ে থাকে। যেমনঃ পাঠাও (Pathao) কুরিয়ারের মাধ্যমে প্রোডাক্ট হোম ডেলিভারি দিতে পাড়বেন। প্রতি অর্ডারে ডেলিভারি চার্জ তেমন বেশি না।

মূলত আমি এটাই বলতে পারি যদি আপনারা সঠিক পন্থায় অনলাইন বা ই-কমার্স ব্যবসায় শুরু করতে পারেন আশা করি আপনার অনলাইন ব্যবসায় সফলতা আসবে। আজকের মত সাইন অফ করছি ব্লগ থেকে।

সবাই ভালো থাকবেন। ধন্যবাদ……………!

লিখেছেনঃ

সৈয়দ গোলাম রাব্বী 

Facebook Comment