কিভাবে ইন্টারনেট থেকে আয় করা সম্ভব জেনে নিন - Graphic School

Blog

কিভাবে ইন্টারনেট থেকে আয় করা সম্ভব জেনে নিন

কিভাবে ইন্টারনেট থেকে আয় করা সম্ভব তা জানতে এই লেখার শেষ পর্যন্ত থাকুন আশা করি সব বুঝতে পারবেন।

প্রথমেই বলছি ইন্টারনেটে আয় করা বা ফ্রিল্যান্সিং করা সম্পুর্ন বৈধ এবং হালাল। এখানে নিজের মেধা ও শ্রম দিয়ে আয় করতে হয় তাই এখানে কোন সংসয় নেই যে এটা বৈধ কিনা। এর মাধ্যমে আপনি নিজে সয়ং সম্পুর্ন হতে পারবেন এবং অন্যদের এ পথে আসতে উৎসাহিত করতে পারবেন। অনেকে ভাবেন যে অনলাইনে কাজ করে অনেক সহজেই অনেক অর্থ আয় করা সম্ভব। কিন্তু আমি বলছি অনলাইনে কাজ করতে হলে আপনাকে প্রথমে প্রচুর শ্রম ও মেধা খরচ করার ধৈর্য রাখতে হবে। শেখার মন মানসিকতা না থাকলে আপনাকে দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কোন ভাবেই সম্ভব না।

আসুন জানি এসব কাজ করতে হলে কেমন অভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন?

অনলাইনে কাজ করার জন্য আপনার খুব নামকরা প্রতিষ্ঠানের সার্টিফিকেটের ও প্রয়োজন নেই আবার সুপার হিউম্যান হওয়ার ও প্রয়োজন নেই। এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে কিছু গুরুত্বপুর্ন বিষয়ের উপরে দক্ষতা। আর সেগুলো হলোঃ Graphic Design, Web Design and Development, Application Software Making, SEO ইত্যাদি। আপনি এগুলোর যেকোন একটা বা একাধিক বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে পারলে আপনার জন্য ফ্রিল্যান্সিং করা সম্ভব।

তবে এর জন্য আপনাকে কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে

  • প্রথমে দক্ষতার সাথে কাজ শিখতে হবে।
  •  অনলাইন ভিত্তিক মার্কেটপ্লেসে কাজ খুজতে হবে।
  • উপযুক্ত কাজ হাতে নিয়ে তা সফল ভাবে সম্পন্ন করতে হবে।
  • সফল ভাবে কাজ সম্পন্ন করার পর সেখান থেকে পাওয়া অর্থ ব্যাংকে জমা করতে হবে।

আসুন জেনে নিই কাজ শিখতে গেলে কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন

  • প্রথমেই আপনাকে ইন্টারনেট এবং ইন্টারনেটে কি কি কাজ করা যায় তা সম্পর্কে জানতে হবে।
  • যে বিষয়ে কাজ করা যায় তা নিয়ে কিছুদিন গবেষনা করুন। প্রয়োজনে গুগলের সাহায্য নিন।
  • ভেবে চিন্তে আপনার পরিস্থিতির সাথে যায় এমন একটা কাজ পছন্দ করুন।
  • এখন সেই নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর শেখা শুরু করুন।
  • টিউটোরিয়াল দেখুন, এক্সপার্টদের সাথে কথা বলুন, কোন উন্নত প্রতিষ্ঠানে সেই বিষয়ের উপরে কোর্স করুন।
  • ২ থেকে ৩ মাস নিজেকে একদম সেই কাজের মধ্যে বিলিয়ে দিন। সর্বোচ্চ রকম প্র্যাক্টিস করুন।
  • নিজে নিজেই বিভিন্ন প্রজেক্ট এ কাজ করুন। এক্ষেত্রে কোন প্রতিষ্ঠানে যুক্ত হোন।
  • এভাবে আপনি নিজেকে একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে প্রতিষ্ঠিত করুন।

অনলাইন মার্কেটপ্লেসে সাধারনত যেসব কাজ করিয়ে নেয়া হয়।

  • SEO- Search Engine Optimization
  • Digital Marketing
  • Web Design and Development
  • Graphics Design
  • Software Development
  • Admin Support
  • Data Entry
  • Sales and Marketing

উপরে উল্লেখিত কাজ ছাড়াও অনেক অনেক কাজ আছে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে। তবে এগুলো বেশি পরিচিত।

তাহলে কি সবগুলো শিখতে হবে নাকি যেকোন একটা শিখলে কাজ করা যাবে?

না। প্রথমত সবগুলো শিখতে হবেনা যেকোন একটা কাজে দক্ষতা অর্জনই যথেষ্ট।

তবে কোন কাজ শিখবো?

এ দায়িত্ব সম্পুর্ন আপনার উপরে। সবগুলো কাজ সম্পর্কে জেনে যে কাজ টা আপনার মেধা ও পরিস্থিতিতে ঠিক হবে সেই কাজটাই আপনার বেছে নিতে হবে। কারো পছন্দ করে দেয়া পথে এগোবেননা। নিজের যেটা ভাল লাগবে সেটাই করবেন। কারন কাজ করতে গিয়ে যদি কাজের উপর মনযোগ না দিতে পারেন তাহলে সবই বৃথা। সাধারনত যেসব কাজের দাম বেশি সেসব কাজের প্রতিযোগিতা কম কারণ সবাই সেটাতে দক্ষ না। অন্যদিকে যেসব কাজ শিখতে সহজ এবং দাম তুলনামুলক ভাবে কম সে কাজে প্রতিযোগিতা বেশি।

তবে মনে রাখবেন এক সাথে অনেকগুলো বিষয়ে শিখতে যাবেননা। যেকোন একটা বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করার পরে যদি মনে করেন আমার আরো শেখা প্রয়োজন তখন অন্য বিষয়ের দিকে যাবেন।

 

চলুন কিছু কাজ সম্পর্কে জানি।

 

Graphic Design – গ্রাফিক ডিজাইন

 

  • গ্রাফিক ডিজাইন কি?

গ্রাফিক ডিজাইন বলতে আসলে লোগো, ব্যানার, ম্যাগাজিন, অ্যানিমেশন ইত্যাদি তৈরি করা বুঝায়। কিছু নির্দিষ্ট সফটওয়্যারের মাধ্যমে এসব কাজ করতে হয়।

  • গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে হলে কি কি বিষয়ে জ্ঞান থাকতে হবে?

সম্পুর্ন গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে হলে আপনাকে ফটোশপ, ইলাস্ট্রেটর ও ইনডিজাইনের কাজ শিখতে হবে। তবে শুধুমাত্র ফটোশপ ও ইলাস্ট্রেটর এর কাজ শিখেও আপনি গ্রাফিক ডিজাইন করতে পারবেন।

  • গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে এবং কাজ পেতে কতদিন সময় প্রয়োজন?

সম্পুর্ন গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে মোটামুটি আপনাকে ২-৩ মাসের মতো সময় দিতে হবে। তবে শিখেই যে অনলাইনে কাজ করতে যাবেন তা ঠিকনা। শেখা এবং প্র্যাক্টিস সহ ৬ মাস সময় ব্যয় করে তবেই মার্কেটপ্লেসে যাওয়া উচিৎ।

  • গ্রাফিক ডিজাইন শিখে কি ভবিষ্যতে উন্নতি করা সম্ভব?

অবস্যই সম্ভব। এই সেক্টরে অনেক কাজের অফার পাওয়া যায়। গ্রাফিক ডিজাইন শিখে আপনি অনলাইন ও অফলাইন দুই ক্ষেত্রে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। প্রতিনিয়ত এসব কাজের বিকাশ ঘটছে।

  • কোথায় শিখব গ্রাফিক ডিজাইন?

বাংলাদেশে বহু প্রতিষ্ঠান আছে আপনাকে গ্রফিক ডিজাইন শেখানোর জন্য। তবে আপনার উচিৎ ভাল ভাবে খোজ নিয়ে সঠিক প্রতিষ্ঠানের স্বরনাপন্ন হওয়া।

  • ঘরে বসে কি গ্রাফিক ডিজাইন শেখা সম্ভব?

আপনার আশেপাশে যদি কোন ভাল প্রতষ্ঠান না থাকে বা আপনি চাকরির পাশাপাশি গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে চান তাহলেও আপনি অনলাইন কোর্স, ভিডিও টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে ঘরে বসেই গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে পারবেন।

Web Design and Development – ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট

  • ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট কি?

এটা হচ্ছে মুলত ওয়েবসাইট তৈরি এবং ওয়েবসাইটের অভ্যন্তরিন কাজ করাকে বুঝায়। ওয়েব ডিজাইন এবং ওয়েব ডেভলপমেন্ট একই ক্যাটাগরির দুটি ভিন্ন কাজ। দুটি কাজ জানা থাকলে তার জন্য অনেক ভাল তবে যেকোন একটা জেনেও অনলাইনে কাজ করা সম্ভব।

  • ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট শিখতে হলে কি কি বিষয়ে জ্ঞান থাকতে হবে?

এই বিষয় শিখতে হলে প্রচুর পরাশোনার ধৈর্য থাকতে হবে। ওয়েব ডিজাইন শিখতে অনেক বিষয়ে জ্ঞান রাখতে হয়। যেমনঃ HTML, PHP, CSS, JavaScript, WordPress ইত্যাদি বিষয় খুব ভাল ভাবে শিখতে হবে। এসব বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের পরেই আপনি নিজেকে ওয়েব ডিজাইনার বলতে পারবেন। আপনি শুধুমাত্র ওয়েব ডিজাইন বা ওয়েব ডেভলপমেন্ট এর কাজ করতে পারবেন। তবে যদি আপনি দুই বিষয়ে এক্সপার্ট হোন তাহলে খুব ভাল। কোন বায়ার যখন কোন ওয়েব ডিজাইন করেন নেয় পরবর্তিতে কোন সমস্যা হলে যেন আপ্নাকেই ডেভলপমেন্টের কাজ দিতে পারে সেজন্য দুইটাই শেখা উচিৎ।

  • ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট শিখতে এবং কাজ পেতে কতদিন সময় প্রয়োজন?

শেখা এবং প্র্যাক্টিস সহ মোটামুটি ৬ মাস সময় দিতে হবে ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভলপমেন্টের পেছনে। যদি কারো সময় বেশি প্রয়োজন হয় তাহলে সেটা সম্পুর্ন করেই মার্কেটপ্লেসে আশা উচিৎ। কারন এ সেক্টরে কোন ত্রুটি রেখে কাজ করা যাবেনা।

  • ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট শিখে কি ভবিষ্যতে উন্নতি করা সম্ভব?

ধারনার বাহিরে উন্নতি করা সম্ভব। কারন দিন দিন এই সেক্টরে কাজ বৃদ্ধি পাচ্ছে কিন্তু সে তুলনায় দক্ষ ওয়ার্কার বৃদ্ধি পাচ্ছেনা। তাই আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্টে দক্ষ হতে পারেন তাহলে আপনাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হবেনা।

  • কোথায় শিখব ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট?

বাংলাদেশে ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট শেখানোর মত তেমন ভাল প্রতিষ্ঠান নেই বললেই চলে। তবে আপনি যদি বিদেশি কোন অনলাইন কোর্সের মাধ্যমে ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট শিখতে পারেন তাহলে অনেক ভাল হয়।

  • ঘরে বসে কি ওয়েব ডিজাইন শেখা সম্ভব?

গ্রাফিক ডিজাইনের মত ঘরে বসে টিউটোরিয়াল দেখে ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট শেখা অনেক কঠিন। সেক্ষেত্রে সঠিক গাইডলাইন পেলে শেখা সম্ভব।

SEO- Search Engine Optimization

  • SEO কি?

SEO মানে হচ্ছে Search Engine Optimization. কিভাবে একটি ওয়েবসাইটকে কোন সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করলে তার প্রথমের সারিতে দেখানো যায় সেটাকেই মূলত SEO বলে। কোন একটি বিষয়ের উপরে লক্ষ লক্ষ ওয়েবসাইট থাকে। কিন্তু গুগলে সার্চ করলে আপনার ওয়েবসাইট কিভাবে সাবার উপরে দেখাবে তার কিছু কৌশল আছে যাকে SEO বলা হয়।

  • SEO শিখতে কি কি জানতে হবে?

SEO শিখতে তেমন বেশি কিছু জানতে হয়না। কম্পিউটার ও ইন্টারনেট সমর্কে যথেষ্ট জ্ঞান থাকলেই SEO নিয়ে কাজ করা সম্ভব। একটা ওয়েবসাইটকে কি কি ভাবে সার্চ করা যায় তার ধারনা আপনার থাকতে হবে।

  • SEO শিখে কাজ পেতে কত সময় প্রয়োজন?

কাজ শেখা এবং নিজেকে প্রস্তুত করতে আপনার মোটামুটি ৩ থেকে ৪ মাসের মত সময় দিতে হবে। বিভিন্ন টুলসের ব্যবহার জানতে হবে।

  • SEO এর কাজ কোথায় শিখব?

ইউটিউবে প্রচুর পরিমানে SEO শেখার টিউটোরিয়াল পাওয়া যায়। বেশি বেশি টিউটোরিয়াল দেখতে হবে অথবা কোন নির্ভর যোগ্য প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে SEO শিখতে পারবেন।

  • SEO এর কাজ শিখে কি ভবিষ্যতে উন্নতি করা সম্ভব?

যদিও এ সেক্টরে কাজের মুল্য তুলনামুলক ভাবে কম এবং অসংখ্য ওয়ার্কার এ সেক্টরে কাজ করে। কিন্তু সঠিক ভাবে কাজ করতে পারলে এ সেক্টর থেকেও যথেষ্ট আয় করা সম্ভব।

Software Development – সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট

  • Software Development কি?

Software Development হচ্ছে মোবাইল ফোন বা কম্পিউটারের বিভিন্ন Application Software তৈরি এবং তার অভ্যন্তরিন কাজ করা।

  • Software Development শিখতে কি কি বিষয় জানতে হয়?

Software Development শিখতে Programming Language জানা আবশ্যক। একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারে দ্বারা Software Development এর কাজ করা সহজ। এটা যথেষ্ট কঠিন কিছু কাজের মধ্যে একটি।

  • Software Development এর কাজ শিখতে কত সময় দিতে হবে?

সর্বনিম্ন ২ থেকে ৩ বছর সময় হাতে নিয়ে এ সেক্টরে পা দিতে হবে। কারন এ বিষয় অনেক কঠিন তাই শিখতে যথেষ্ট সময়ের প্রয়োজন। অনেক অনেক পড়াশোনা, মনযোগ, শ্রম ও অধ্যবসায়ের মাধ্যমে Software Development এর কাজ শেখা সম্ভব।

  • Software Development কোথায় শিখব?

ভিডিও টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে কিছুটা শেখা সম্ভব। কিন্তু এক্ষেত্রে কোন প্রতিষ্ঠানের দ্বারা প্রশিক্ষন নেয়াই উত্তম। বর্তমানে বাংলাদেশে কিছু প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা Programming Language শিখিয়ে থাকে।

  • Software Development এর ভবিষ্যৎ কেমন?

এ সেক্টরের ভবিষ্যৎ সুদূর প্রসারী। অনলাইন মার্কেটপ্লেসের সবচেয়ে দামি কাজগুলোর মধ্যে এটি একটি। তাই এ সেক্টরে নিজেকে তৈরি করতে পারলে আপনার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হবে এ আশা করা যায়।

Data Entry – ডাটা এন্ট্রি

অনলাইনে অনেকে বিভিন্ন ভাষার লেখা ইংরেজিতে লিখে নেয় আবার কোন ছবি থেকে লেখা দেখে হাতে টাইপ করে নেয় ইত্যাদি হচ্ছে Data Entry এর কাজ। Data Entry হছে যারা লেখালেখি তে এক্সপার্ট তাদের জন্য উপযুক্ত কাজ।

আপনি কোনটা শিখবেন?

কয়েকটা ভাল ভাল সেক্টর নিয়ে উপরে বলা হয়েছে। এগুলো থেকে আপনার যেটা ভাল মনে হবে সেটা শিখবেন। আপনার বর্তমান পরিস্থিতির উপর যেটা যায় সেই কাজটাই আপনার করা উচিৎ। যেহেতু কাজ আপনি করবেন সেহেতু পছন্দটা ও আপনার হতে হবে।

আপনার জন্য আমরা যে সাজেশন টা দিতে চাইঃ

যেহেতু আপনি এসব ব্যাপারে একদম নতুন তাই আমাদের কাছে সাজেশন চাইতেই পারেন। তাই আপনার জন্য আমাদের সাজেশন এটাই যে সবদিক বিবেচনা করে আপনার গ্রাফিক ডিজাইন শেখা উচিৎ। এ সেক্টরে খুব বেশি সময় দিতে হয়না এবং দক্ষতা অর্জন করতে পারলে ইনকাম নিয়ে ভবিষ্যৎ চিন্তা করতে হয়না।

আর আপনি যদি মনে করেন আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকেই গ্রাফিক ডিজাইন শিখবেন তাহলে দেরি না করে আজই অর্ডার করুন আমাদের বাংলা ভিডিও টিউটোরিয়াল ডিভিডি। যার মাধ্যমে আপনি ঘরে বসেই এডভান্স লেভেলের গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে পারবেন। তাই অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন।

তবে অর্ডার করার আগে আমাদের ভিডিও কোয়ালিটি এবং শেখানোর কৌশল সম্পর্কে জানতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল থেকে ঘুরে আসুন এখানে ক্লিক করুন।

এতক্ষন ধৈর্য সহকারে লেখাটি পড়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। আজ এ পর্যন্তই, আগমি পর্বে দেখা হবে নতুন কোন বিষয় নিয়ে। সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন খোদা হাফেজ।

Facebook Comment