মাইক্রোসফট এক্সেল সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন - Graphic School

Blog

মাইক্রোসফট এক্সেল সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন

মাইক্রোসফট এক্সেল-Microsoft Excel

আজকে আমরা আলোচনা করাবো মাইক্রোসফট অফিস এর একটি অংশ মাইক্রোসফট এক্সেল নিয়ে। এখানে মাইক্রোসফট এক্সেল নিয়ে বিস্তারিত বলার চেষ্টা করবো আশা করি আপনারা লেখার শেষ পর্যন্ত থাকবেন। তো আর দেরি না করে চলুন মাইক্রোসফট এক্সেল সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নিই।

মাইক্রোসফট এক্সেল কি?

মাইক্রোসফট এক্সেল হচ্ছে মাইক্রোসট কর্পোরেশন কর্তৃক প্রকাশিত মাইক্রোসফট অফিস নামক একটি সফটওয়্যার এর অন্যতম একটি অংশ। এটি প্রথম আবিষ্কৃত হয় ১৯৯০ সালে। মাইক্রোসফট এক্সেল এর প্রথম সংস্করণ ছিল ১৯৯৫ ভার্সন। এরপর এটি ৮ দফায় আপডেট হয়ে সর্বশেষ ২০১৬ ভার্সনে এসে পৌছেছে। ১৯৯৫ থেকে ২০০৭ ভার্সন পর্যন্ত যে ভার্সনগুলো এসেছে সেগুল ছিল সবার জন্য উন্মুক্ত অর্থাৎ ফ্রি। কিন্তু ২০১০ ভার্সন রিলিজ করার সময় মাইক্রোসফট কর্পোরেশন তারা আর ফ্রি না রেখে সেটাকে প্রিমিয়াম ভার্সনে রিলিজ করে। অর্থাৎ এ ভার্সনটি ব্যবহার করতে হলে অবস্যই টাকা খরচ করে মাইক্রোসফট কর্পোরেশন কর্তৃক অনুমোদন নিয়ে তারপর ব্যবহার করতে হবে। মাইক্রোসফট এক্সেলে আপনি যেকোন ভাষায় লিখতে পারবেন। তবে আমরা বাঙালীরা বাংলা এবং ইংরেজিতেই বেশি লিখি।

এটা হচ্ছে মাইক্রোসফট এক্সেল ২০১৬ ভার্সনের হোম মেনু

মাইক্রোসফট এক্সেল এর গুরুত্ব

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর পরেই মাইক্রোসফট এক্সেলকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। কেননা প্রতিটি পদক্ষেপে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর পরেই আপনার মাইক্রোসফট এক্সেল জানা জরুরী। অফিশিয়াল প্রায় বেশিরভাগ কাজেই এর প্রয়োজন আপনি লক্ষ করবেন।  অর্থাৎ অধিক তথ্য ও হিসাব নিকাশ সম্পর্কিত যেকোন কাজের জন্য আপনার মাইক্রোসফট এক্সেল শেখা অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন।

মাইক্রোসফট এক্সেল এর কাজ কি?

যখন অল্পসংখ্যক তথ্য জমা রাখতে হয় তখন আমরা মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে টেবিলের মাধ্যমে করে থাকি। কিন্তু যখন শতাধিক বা হাজারের ও বেশি তথ্য জমা রাখতে হয় তখন আমাদের এক্সেলের প্রয়োজন। এক্সেল শিট সম্পুর্নটাই ছক আকারে তৈরি করা তাই তথ্য জমা রাখা অনেক সহজ হয়। ধরুন আপানার অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারী দের সকল তথ্য জমা রাখতে হবে সেক্ষেত্রে আপনি এক্সেল ব্যবহার করতে পারবেন। আবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী দের তথ্য জমা রাখার জন্য এক্সেল ব্যবহার করতে পারবেন। এমন আরো অনেক কাজই আছে যেটা খুব সহজেই আপনি মাইক্রোসফট এক্সেলের মাধ্যমে সহজেই করে ফেলতে পারবেন।

এখন আসি মাইক্রোসফট এক্সেল এর কাজ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনায়।

মাইক্রোসফট এক্সেলে আপনি ছোট থেকে বড় সবরকম হিসাব করতে পারবেন যেমন যোগ,বিয়োগ, গুন, ভাগ থেকে শুরু করে বেতন স্কেল, ব্যাংকের সুদের হার, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের আয়-ব্যায়ের হিসাব করতে পারবেন। ছাত্র-ছাত্রীদের সকল বিষয়ের নম্বর যোগ করে কোন কোন বিষয়ে পাশ এবং ফেল সেটা বের করতে পারবেন। কতজন পাশ করলো কতজন ফেল করলো এমনকি বাংলাদেশের শিক্ষাবোর্ড যেভাবে গ্রেড বের করে সেটাও করতে পারবেন।

বয়স মাপার ক্যালকুলেটর তৈরি করে সহজেই বর্তমান তারিখ এবং জন্মতারিখ দিয়ে আপনার বয়স কত বছর কত মাস কতদিন সব বের করতে পারবেন। বিদ্যুৎ অফিসে যেভাবে বিদ্যুৎ বিলের হিসাব করা হয় সেটা আপনি ঘরে বসেই করে ফেলতে পারবেন। একটি অফিসের বিভিন্ন পদের কর্মকর্তা-কর্মচারী দের বেতন স্কেল তৈরি করে সহজেই কার কত বেতন তা বের করতে পারবেন।

এসবগুলো কাজই করতে পারবেন সহজ কিছু সুত্রের মাধ্যমে। এছাড়াও আরো অনেক কাজই আপনি মাইক্রোসফট এক্সেলের মাধ্যমে করতে পারবেন।

মাইক্রোসফট এক্সেল কিভাবে শিখবো?

এটি শিখতে হলে আপনাকে কোন প্রতিষ্ঠান গিয়ে মাইক্রোসফট অফিস এ্যাপ্লিকেশন কোর্সটি করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার তাদের নিয়ম মেনে এবং অনেকগুলো অর্থের বিনিময়ে শিখতে হবে। অথবা আপনি ঘরে বসে ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে শিখতে পারবেন। কোন প্রতিষ্ঠানে গিয়ে কোর্স করার চাইতে ঘরে বসে শেখাটা অনেক সহজ এবং সল্প খরচে এটি করতে পারবেন। আপনাকে শুধু ভিডিও টিউটোরিয়াল গুলো দেখতে হবে এবং সে অনুযায়ী প্র্যাক্টিস করতে হবে। আপনি যত বেশি সময় ও মনযোগ দিতে পারবেন তত তারাতারি শিখতে পারবেন।

মাইক্রোসফট এক্সেল সহ আরো অন্যান্য ফ্রি ভিডিও টিউটোরিয়ালের জন্য ভিজিট করুন এখানে…

ফ্রি ভিডিওগুলো পছন্দ হলে ডিভিডি অর্ডার করতে ভিজিট করুন এখানে…

 

Facebook Comment