আউটসোর্সিং প্যাকেজ - Graphic School

ডিভিডি প্যাকেজ

আউটসোর্সিং প্যাকেজ

৳ 450.00
Outsourcing-A-to-Z-video-learning-by-graphic-school

Course Overview

বর্তমানে আউটসোর্সিং হচ্ছে বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের তৃতীয় ক্ষেত্র। বাংলাদেশে আউটসোর্সিং নিয়ে যে আলোচনা হচ্ছে, সেটা মূলত ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে উন্নত বিশ্বের আউটসোর্সিং। ব্যবসায়িকভাবে আউটসোর্সিং সার্ভিসের শিল্পটা এখনো সেভাবে গড়ে ওঠেনি। তার পরেও অনেকের মধ্যে ফ্রিল্যান্সার হিসাবে কাজ শুরু করে উদ্যোক্তা হবার প্রবণতাও দেখা যাচ্ছে।

 

আউটসোর্সিং কি : যখন কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান তার নিজের বা প্রতিষ্ঠানের কাজ নিজে নিজে না করে বাইরের কাউকে দিয়ে করিয়ে নেয় তখন সেটি হচ্ছে আউটসোর্সিং।

অর্থাৎ, ধরুন আপনার একটি কোম্পানি আছে। আপনি সেটার জন্য কিছু পোষ্টার তৈরী করা প্রয়োজন এখন আপনি কি করবেন? নিশ্চই কোন প্রিন্টিং কোম্পানি অথবা যারা এ ধরনের কাজ করবেন তাদের সাথে যোগাযোগ করবেন। এখন একটা প্রশ্ন আপনি কেন নিজে কেন করছেন না? উত্তর টি হচ্ছে আপনি এই সম্পর্কে কিছুই জানেন না। কিন্তু যদি আপনি কাজটি করতে যেতেন তাহলে কি কি জিনিস আপনার দরকার হত।
১. আপনার একজন ভালো গ্রাফিক্স ডিজাইনার দরকার হতো।
২. একটা ছাপাখানা দরকার হত।
৩. আপনার কাটিং মেশিন দরকার হত।

মোটামোটি এগুলো হলে আপনার পোষ্টার টি আপনি তৈরী করতে পারেন। আপনার ২০০০ পোষ্টার করার জন্য কত কিছুই না দরকার হত। কিন্তু আপনি যদি অন্য কোন কোম্পানি যারা এই ধরনের কাজটি করে তাদের কে দেন তারা আপনার কাজটি করে দেবে খুব সহজে এটা ও এক ধরনের আউটসোর্সিং। একটি কোম্পানির কাজ অন্য কোন কোম্পানি কে দিয়ে করিয়ে নেয়া। আরো সহজ ভাবে যদি বলতে যাই তাহলে অন্য কোন দেশের অন্য কারো কাজ বাড়িতে বসে ইন্টারনেট এর মাধমে করাই হচ্ছে আউটসোর্সিং।

আমাদের বাংলাদেশে এবং বিশ্বের প্রায় দেশেই আউটসোর্সিং জগতে কাজ করে এমন অনেক ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন । কিন্তু তাদের সবাই শতভাগ সফল হতে পারেননি। সর্বদা মনে রাখবেন আউটসোর্সিং একটি স্বাধীন ও মুক্ত পেশা, সেখানে আপনার ব্যক্তিগত জবাবদিহিতার চেয়ে আপনার কাজের জবাবদিহিতা অনেক বেশি। আপনি এই জগতে আসবেন অবশ্যই আয় করার জন্য এবং আপনি যার কাছ থেকে এই উপার্জন করবেন তাকে কোন না কোন সেবা প্রদান করেই এই উপার্জন আপনাকে করতে হবে। তাই যদি হয়, আপনার কাজ যদি সঠিক না হয়, আপনার কাজে যদি কোন প্রকার জবাবদিহিতা না থাকে, আপনি যদি কাজ করার ক্ষেত্রে অনেক বেশী মনযোগী না হন, আপনার কাজে যদি অনেক বেশী স্বচ্ছতা না থাকে তাহলে আপনার পক্ষে এই সেক্টরে সফল হওয়া সম্ভব নয়। আউটসোর্সিং এ সর্বদা আপনি নিজেকে দিয়ে মূল্যায়ন করবেন। আপনার কাজের দক্ষতায় আপনাকে উপরের স্তরে যাওয়ার রাস্তা তৈরি করে দিবে, তাই আপনাকে যে কাজ দেওয়ার হবে সেই কাজ যদি আপনি সঠিক ভাবে সঠিক সময়ের মধ্য দিয়ে কাজটি ক্ল্যায়েন্টকে প্রদান করতে না পারেন তাহলে আপনাকে সেখান থেকে ছিটকে যেতে হবে সেই মুহূর্তেই, আর যদি তা পজিটিভ হয়, তাহলে সেও খুশি থাকবে এবং আপনারও ভবিষতে কাজ পাবার সম্ভাবনাও বেড়ে অনেক খানি বেড়ে যাবে।

এখন হয়তো বুঝতে পারছেন আউটসোর্সিং কি? আপনি কি জানেন এই আউটসোর্সিং-এ বাংলাদেশ বাদ দিয়েও অন্যান্য উন্নত দেশও অনেক জোর দিচ্ছে। চলুন জেনে নেই উন্নত দেশগুলো আউটসোর্সিং-এর ওপরে কেন জোর দিচ্ছে?

 

উন্নত দেশগুলি আউটসোর্সিং-এ জোর দেওয়ার কারণ ?
উন্নত দেশগুলিতে যেকোনো কাজের(আমেরিকা বা ইউরোপ)মজুরী অত্যন্ত বেশি। কোন কোম্পানীর যদি ওয়েবসাইট তৈরী করার প্রয়োজন হয়, আর এজন্য যদি একজন ওয়েব ডিজাইনার নিয়োগ করতে হয় তাহলে বিপুল পরিমান টাকার প্রয়োজন হয়। সে কাজটিই যদি অন্য দেশের ওয়েব ডিজাইনার দিয়ে করিয়ে নেওয়া হয় তাহলে, তুলনামুলক কম টাকায় করিয়ে নেওয়া যায়। তাই ঐসব দেশের মানুষ আমাদের মত দেশ থেকে করিয়ে নেন তাতে করে দুজনেরই লাভ। বর্তমান ইন্টারনেট ব্যবস্থায় খুব সহজে এ কাজ করা সম্ভব। আপনি যদি ওয়েব ডিজাইনার, গ্রাফিক্স ডিজাইনার, অথবা আর্কিটেকচার যাই হোন না কেন ইন্টারনেটের মাধ্যমেই তাদের কাজ করতে পারেন। এজন্য ঘরের বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। সোজা কথা বলতে গেলে উন্নত দেশগুলো কাজের মূল্য বা খরচ কমানোর জন্য আউটসোর্সিং করে থাকে। আমাদের পার্শবর্তী দেশ ভারত,পাকিস্তান এবং ফিলিপাইন সেই সুযোগটিকে খুবই ভালভাবে কাজে লাগিয়েছে। আমরাও যদি ফ্রিল্যান্সিং এর বিশাল বাজারের সামান্য অংশ কাজে লাগাতে পারি তাহলে এটি হতে পারে আমাদের অর্থনীতি মজবুত করার শক্ত হাতিয়ার।

 

এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, আউটসোর্সিং-এর কাজ কেমন করে করবেন?

আসুন জেনে নেইঃ

অনলাইনের মাধ্যমে আউটসোর্সিং অনেক ভাবেই করা যায়। কিন্তু অনলাইনে কাজ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই যে কাজ করবেন সেই কাজে আপনাকে দক্ষ থাকতে হবে। যেকোন কাজ দক্ষতা দিয়ে কাজ করলে আপনার সুফল নিশ্চিত। অনলাইন আউটসোর্সিং বলতে বুঝায়, যে কাজ ক্লায়েন্ট অনলাইনের মাধ্যমে আপনাকে দিবে, আপনি যে কাজ করবেন তাতে চুক্তিবদ্ধ হবেন, আপনি আপনার দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে কাজটি করবেন, আর অনলাইনের মাধ্যমে আপনার কাজটিকে আপনার ক্লাইন্টের কাছে ডেলিভারি দিবেন এবং ক্লাইন্ট আপনাকে অনলাইনের মাধ্যমে পেমেন্ট পরিশোধ করবে।এখন আসল কথা হল আপনি আপনার যে কাজটি কাজটি আপনি করে ক্লইন্টকে জমা দিলেন সেই কাজটি আপনি অনলাইনে করেননি সেই কাজটি করেছেন আপনার দক্ষতা দিয়ে। শুধু মাধ্যমটা হল অনলাইন।

আপনাকে মাথায় রাখতে হবে আউটসোর্সিং-এর কাজ করতে হলে ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জন জরুরী।
আমাদের দেশের ফ্রিল্যান্স আউটসোর্সিং সেক্টরের একটি বড় সমস্যা হচ্ছে ইংরেজি না জানা। গবেষণা প্রতিষ্ঠান গার্টনারের একটি জরিপে দেখা গেছে, দেশের তরুণেরা আউটসোর্সিংয়ে পিছিয়ে থাকার পেছনে ইংরেজি দুর্বলতা অনেকটা দায়ী। আউটসোর্সিং-এর ক্ষেত্রে ইংরেজি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
যেহেতু বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করতে হয় সে জন্য ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা থাকা প্রয়োজন। নতুবা কোনভাবেই আপনি আপনার বায়ারের রিকোয়ারমেন্ট যেমন বুঝতে পারবেন না তেমনি কোন সমস্যাও তাকে বুঝিয়ে বলতে পারবেন না। ইংরেজিতে দূর্বলরা উপরের কথা পড়ে হয়ত ঘাবড়ে যেতে পারেন, তবে তাদের জন্য বলতে পারি, আপনাকে কিন্তু ইংরেজিতে পন্ডিত হতে হবে এমনটি নয়!
ভাব বিনিময় এবং ব্যবসায়িক কাজগুলোর জন্য সাধারণত যে ইংরেজি ব্যবহৃত হয় সেটি জানলেই চলবে। যারা ইংরেজিতে দূর্বল তাদের এটি দূর করতে খুব বেশি যে সময় লাগবে এমনটি নয়, ২ থেকে ৩ মাস একটু চেষ্টা করলেই এ ধরণের ইংরেজি রপ্ত করা সম্ভব।

আউটসোর্সিং সম্পর্কে অনেকেই অনেক ধারণা পেয়ে গেলেন। কিন্তু শুধু ধারণা পেলেই চলবেনা। পাশাপাশি আউটসোর্সিং নিয়ে কাজও করতে হবে। কিন্তু আপনি কোথায় কাজ করবেন? হাট বাজারে তো আর আপনি আউটসোর্সিং এর কাজ করতে পারবেন না। আউটসোর্সিং-এর কাজ যেখানে করা হয় তাকে অনলাইন মার্কেটপ্লেস বলা হয়। কিন্তু কোন কোন মার্কেটপ্লেসে আপনি কাজ করবেন? চলুন জেনে নেই আউটসোর্সিং করার জন্য সবচেয়ে ভালো মার্কেটপ্লেসগুলো সম্পর্কে>>>

ফ্রিল্যান্সার.কমঃ ফ্রিল্যান্সার সাইটটি হচ্ছে বহুল জনপ্রিয় সাইট যেখানে অনেক ফ্রিল্যান্সাররা নিয়মিত কাজ করে এবং কোটি কোটি টাকা উপার্জন করে। ফ্রিল্যান্সার সাইটি হচ্ছে একটি প্রতিযোগিতামূলক সাইট। এই সাইটে কাজ করতে হয় প্রতিযোগিতা দিয়ে। অনেকের মধ্যে কন্টেস্ট করে কন্টেস্ট জিততে হয়। আপনার যদি প্রতিযোগিতার মানসিকতা থাকে যদি নিজেকে আউটসোর্সিং কাজের জন্য প্রস্তুত করে নিয়ে থাকেন তাহলে ফ্রিল্যান্সার আপনার জন্য কাজের সুযোগ রেখে দিয়েছে। আপনি অনায়াসে এ সুযোগ ভোগ করতে পারেন। অন্য ওয়েবসাইটগুলোর সাথে এই সাইটের পার্থক্য হচ্ছে প্রতিযোগিতা দিয়ে কাজ করতে হবে এবং আপনার দক্ষতা প্রমান করতে হবে। আর এইভাবেই আপনার ক্যারিয়ারকে গড়ে তুলতে হবে।

আপওয়ার্কঃ আপওয়ার্ক একটি বিগেস্ট ফ্রিল্যান্সার ওয়েবসাইট। যেখানে প্রায় ৩ মিলিয়ন ক্লায়েন্ট আর ১০ মিলিয়ন ফ্রিল্যান্সার কাজ করে। এখানে অনেক ছোট বড় স্বল্পমেয়াদী এবং দীর্ঘমেয়দী কাজ রয়েছে এই সাইটে। এই সাইটে ফিক্স রেট এবং ঘন্টা হিসাবে কাজ হয়। ফ্রিক্সড রেট হল ক্লাইন্ট আপনাকে পুরো কাজটি শেষ করার জন্য ফ্রিল্যান্সারকে একটা এমাউন্ট উল্লেখ করে দিবে। আর ফ্রিল্যান্সার তার নিজ নিজ ডিমান্ড এর সাথে মিলিয়ে কাজ করার প্রপোজাল দিবে এবং সময় মত কাজ করে জমা দিতে হয়।

ঘন্টা ভিত্তিক কাজই এখানে বেশি পপুলার। কাজ করার জন্য ক্লাইন্ট ফ্রিল্যান্সারকে একটি নির্দিষ্ট সময় ও টাকা উল্লেখ করে দিবে। আর ফ্রিল্যান্সাররা বিট করে ওই সময়ে বা আরো বাড়িয়ে নিবে না হলে ওই অ্যামাউন্টেই কাজ নিয়ে কাজ করতে শুরু করবে। আর আপওয়ার্ক অটোমেটিক টাইম ট্রেকার প্রতি মূহুর্তের কাজের ডাটা কালেকশন করে রাখে আর বায়ার সেগুলো দেখে নিশ্চিত হতে পারে যে তার কাজে কোন ফাঁকি দেওয়া হচ্ছে না। আর প্রতি ঘন্টার টাকা বা পেমেন্ট আপনার অ্যাকাউন্টে জমা দেওয়া হবে।

আপওয়ার্কে ঘন্টা হিসাবে কাজ আপনার জন্য দেশে বসে চাকরি করার মতই। আপনি একটা অফিসে ৮ ঘন্টা বা তার কম বেশি সময়ের জন্য কাজ করতেন এবং সেই সময় নির্ধারণ করতেন আপনার অফিস কতৃপক্ষ। আপনার তাতে কিছু করার নেই। কিন্তু আপনি ফ্রিল্যান্সার হয়ে কাজ করলে আপনার টাইম আপনি নিজেই নির্ধারণ করবেন। আপনি যত ঘন্টা ইচ্ছে আপনি তত ঘন্টাই কাজ করবেন এটা আপনার একন্ত ব্যাক্তিগত বিষয়।

আপওয়ার্কে একটা সুবিধা হল এই সাইটে দক্ষ অদক্ষ সবাই কাজ করতে পারবে। আর আপনি দক্ষ হলেতো কোন কথাই নাই। আপনার জন্য কাজের কোন অভাব নেই। কারণ আপওয়ার্কে প্রচুর পরিমাণে কাজ রয়েছে যা আপনি কল্পনাও করতে পারেন নি। এইখানে আপনি ইচ্ছে করলে দিন রাত কাজ করতে পারবেন, কিন্তু আপনার কাজ শেষ হবে না।

ফাইভারঃ ফাইভার আর একটি বহুল জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সার ওয়েবসাইট এই ফাইভারেও অনেক কাজ পাওয়া যায়। কিন্ত এখানে আপনাকে অবশ্যই দক্ষ হতে হবে। কারণ ফাইভারে কাজ নিতে হলে আপনাকে কাজ করে দিতে হবে যথা সময়ের মধ্যে। না হলে আপনাকে বেড ইপেক্ট দিয়ে দিবে। বাইয়ার যদি একবার বেড ইপেক্ট দিয়ে দেয় তাহলে আপনার কাজ পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে যাবে। তাই আপনাকে অতি সতর্কতার সাথে কাজ করে দিতে হবে।এবং কাজের মান অবশ্যই ভাল করতে হবে। কারণ এই মার্কেটপেসটা খূবই প্রতিযোগিতামূলক মার্কেটপেস। আার বড় কথা হল এই সাইটে আপনি কাজ জানলে আপনার কাজের অভার নেই। আর না পারলে আপনি অন্য সাইট থেকে কাজ করবেন। তাতেই আপনার ভাল হবে।

ফ্রিল্যান্সার হিসাবে কাজ করা আসলেই দারুন একটি ব্যাপার। এই কাজ যারা করে তারাই জানে যে, ফ্রিল্যান্সার আসলেই কি। এখানে আপনি নিজেই আপনার বস। কেউ আপনাকে হুকুম করবে না। আপনি স্বাধীন ভাবে কাজ করার সুযোগ পাবেন এই ফ্রিল্যান্সারের মাধ্যমে। অফিসের মালিক তো আপনি নিজেই। আউটসোর্সিং এর জন্য আপনারা যে ওয়েবসাইটগুলো সাথে পরিচিত হয়েছেন আশা কারি আপনার এই সাইট থেকে কাজ করলেও সারা জীবন কাজ করতে পারবেন কাজ শেষ হবে না। যদি আপনি দক্ষতার সাথে কাজ করতে পারেন।

 

আউটসোর্সিং-এ কাজ করার প্রথমে কোন কাজ টা শিখবেন তা নির্ধারণ করুন। তারপরে কোথায় থেকে শিখবেন সেইটাও নির্ধারণ করে ফেলুন। বর্তমানে অনেক প্রতিষ্ঠান আউটসোর্সিং বিষয়ক কাজ শিখিয়ে আসছে। আপনাকে একটা কথা মাথায় রাখতে হবে যে, আউটসোর্সিং-এর কাজ যেখান থেকে শেখার জন্য ঠিক করেছেন সেখানে যোগদান করার আগে জেনে নিন উক্ত প্রতিষ্ঠানটি কেমন। অর্থাৎ এখান থেকে আপনি আউটসোর্সিং-এর যেকোনো কাজ শিখতে পারবেন নাকি? কারণ সেখানোর নাম করে অনেক প্রতিষ্ঠানই মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এতে করে অনেকেরই আউটসোর্সিং-এর ওপর থেকে চাহিদা হারিয়ে যাচ্ছে।

কিন্তু আমাদের গ্রাফিক স্কুল অব বাংলাদেশ আউটসোর্সিং-এর যাবতীয় খুঁটিনাটি বিষয় সহ বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস নিয়ে ভিডিও টিউটোরিয়াল(ডিভিডি প্যাকেজ) নিয়ে এসেছে। এই ভিডিও টিউটোরিয়ালগুলো এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যে, এগুলো দেখে যেকোনো শ্রেণীর মানুষ খুব সহজেই আউটসোর্সিং বিষয়টা শিখে নিতে পারে এবং অর্থ উপার্জন করে স্বাবলম্বী হতে পারে। চলুন দেখে নেই আমাদের এই ডিভিডি প্যাকেজে তে কি কি আছে?

আউটসোর্সিং

আউটসোর্সিং DVD তে থাকছে ৫টি মার্কেটপ্লেস নিয়ে ১৮টি ভিডিও টিউটোরিয়াল। Fiverr, UpWork, 99Design, Freelancer এবং Graphicriver এই ৫টি অনলাইন মার্কেটপ্লেস নিয়ে এখানে আলোচনা করা আছে। কিভাবে এসব ওয়েবসাইটে একাউন্ট তৈরি করতে হয় এবং কিভাবে কাজ শুরু করতে হবে, কিভাবে কাজ পাবেন, কিভাবে কাজ করবেন সব ডলার ইনকাম করার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সব কিছু এ DVD থেকে জানতে পারবেন।

কিভাবে এই ডিভিডি হাতে পাব?

১) এই ডিভিডি হাতে পেতে হলে আপনাকে প্রথমে অর্ডার করতে হবে। কারণ আমাদের ডিভিডি বাজারে বিক্রয় করা হয়না। অর্ডার করলে আমরা আপনাকে কুরিয়ার সার্ভিস অথবা হোমডেলিভারি পাঠিয়ে দিবো। অর্ডার করতে কল করতে পারেন অথবা নিচের অর্ডার ফরম পূরণ করলেও আপনাকে গ্রাফিক স্কুলের যেকোন একজন বিক্রয় প্রতিনিধি কল করে অর্ডার সম্পন্ন করে নিবে এবং আপনাকে ডিভিডি পাঠিয়ে দিবে এবং, ডিভিডি হাতে পাওয়ার পর আপনাকে গ্রাফিক স্কুল থেকে মোবাইলে মেসেজ এবং ইমেইল পাঠানো হবে। সেখানে www.GraphicSchoolBD.com এর একটি অ্যাকাউন্ট আইডি ও পাসওয়ার্ড দেয়া হবে। সেটা দিয়ে গ্রাফিক স্কুলের ওয়েবসাইটে লগইন করলেও আপনি এই ডিভিডিতে থাকা সকল ভিডিও দেখতে পাবেন এবং অনেক কুইজে অংশ গ্রহণ করতে পারবেন। এই কুইজের মাধ্যমে আপনার দক্ষতার লেভেল নিজে নিজেই যাচাই করতে পারবেন। গ্রাফিক স্কুল থেকে যখন কোন নতুন ভিডিও পাবলিশ করা হবে বা নতুন ভার্সনের ভিডিও পাবলিশ করা হবে সেসব ভিডিও আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে তখন ফ্রীতেই দেখতে পাবেন। তার জন্য কোন অতিরিক্ত টাকা দিতে হবেনা। তারমানে হচ্ছে আপনি একবার আমাদের ভিডিও প্যাকেজ কিনলে সেটার আপডেট আপনার অ্যাকাউন্ট এর মাধ্যমে সারা জীবন পাবেন। আমরা এই সুযোগ দিচ্ছি কারণ প্রতিবছর নতুন নতুন ভার্সন পরিবর্তন হয় এবং ফ্রীলান্সিংএ অনেক পরিবর্তন আসে সেগুলো যেন আপনারা খুব সহজে পেতে পারেন।

২) আপনি অনলাইনের মাধ্যমেও আমাদের এই ভিডিও টিউটোরিয়াল গুলো পেতে পারেন। আপনি নিচের অর্ডার ফরম পূরণ করলে আমাদের একজন বিক্রয় প্রতিনিধি আপনাকে কল করবে এবং আপনি তার সঙ্গে কথা বলে বিকাশ/রকেটের মাধ্যমে পেমেন্ট করে দিলে উনি সঙ্গে সঙ্গে আপনার ইমেইল দিয়ে অ্যাকাউন্ট একটিভ করে ফেলবে এবং আপনার মোবাইলে ও ইমেইলে অ্যাকাউন্ট এর আইডি এবং পাসওয়ার্ড যাবে। তারপর আপনি www.GraphicSchoolBD.com এ আপনার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে তখনই ভিডিও দেয়া শুরু করতে পারবেন এবং ডিভিডিতে থাকা সকল ফাইল ওই অ্যাকাউন্ট থেকে ডাউনলোড করেও নিতে পারবেন। এটার মাধ্যমে আপনি যেকোন জায়গা থেকে যখন ইচ্ছা তখন ডিভিও দেখতে পারবেন।

এই ডিভিডি প্যাকেজের মূল্য কত?

আমাদের এই আউটসোর্সিং ডিভিডিটি আপনি মাত্র ৪৫০ টাকায় পাবেন।

ডিভিডি অর্ডার করার আগে আমাদের ফ্রীভিডিও গুলো দেখে নিন। নিচের দিকে ফ্রীভিডিও পাবেন।

অর্ডার করতে কল করুনঃ 01846-700700, 01847-300100

Course Features

  • Lectures18
  • Quizzes0
  • Duration18 hour
  • Skill levelbeginner
  • LanguageBengali
  • Re-take courseN/A
  • Fiverr.com  0/5

    • Fiverr : Account Create
    • Fiverr : GIG Creation
    • Fiverr : Buyer Request & Order Delivery
    • Fiverr : Tips & Sales
    • Fiverr : GIG Promotion
  • Freelancer.com  0/3

    • Freelancer : Account Create
    • Freelancer : Profile Create
    • Freelancer : Contest Entry Submit
  • Graphicriver.net  0/4

    • Graphicriver : Account Create
    • Graphicriver : Profile Create
    • Graphicriver : Design Upload
    • Graphicriver : File Create
  • 99design.com  0/3

    • 99design : Account Create
    • 99design : Profile Create & Verification
    • 99design : Wining Policy
  • Upwork.com  0/3

    • Upwork : Account Create
    • Upwork : Profile & Portfolio Create
    • Upwork : Skill Test

Order Now

Billing Details

Additional Information

ProductTotal
আউটসোর্সিং প্যাকেজ ৳ 450.00
Courier Service Charge ৳ 0
Total ৳ 450.00
Cash On Delevery
Online Payment

Facebook Comment

Related Course