মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে ব্যবহৃত সর্টকার্ট সমুহ - Graphic School

Blog

মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে ব্যবহৃত সর্টকার্ট সমুহ

মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে কাজ করার সময় আমরা বেশিরভাগ মাউস চেপে বিভিন্ন কমান্ড প্রদান করে থাকি। কিন্তু কোন কিছু খুজে বের করে মাউস চেপে কমান্ড প্রদান করা একটু সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। তবে আমরা সেই কাজগুলো কিবোর্ডের সর্টকার্ট কমান্ড কি ব্যবহার করে সহজেই করতে পারি। A থেকে Z পর্যন্ত সকল বাটনের একটি করে সর্টকার্ট কমান্ড আছে। এগুলো ছাড়াও আরো অনেক সর্টকার্ট ব্যবহার করা যায় মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে। আজকের পর্বে আমরা এসব জানবো। এই লেখার শেষ পর্যন্ত পড়লে এবং মনে রাখতে পারলে আপনাকে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে মাউসের ব্যবহার করতে ইচ্ছে করবেনা। তো চলুন মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের সর্টকার্ট গুলো জেনে নিই এবং আমাদের কাজে ব্যবহার করি।

[বিঃদ্র] এখানে Ctrl+A বলতে Ctrl চেপে ধরে থেকে A বাটনে চাপ দিতে হবে আবার Ctrl+Alt+B  বলতে Ctrl  এবং Alt একসাথে চেপে ধরে B চাপলে সর্টকার্ট কমান্ড কাজ করবে]

Ctrl+A এর মাধ্যমে ডকুমেন্টের ভিতরে থাকা সকল কিছু একসাথে সিলেক্ট করা যায়। শুধু মাইক্রোসফট ওয়ার্ডেই না সকল ক্ষেত্রে এ সর্টকার্ট কমান্ড প্রযোজ্য।

Ctrl+B এর মাধ্যমে লেখাকে বোল্ড বা মোটা করা হয়। এর জন্য প্রথমে যে লেখা বোল্ড করতে হবে সেটা সিলেক্ট করে নিয়ে সর্টকার্ট কমান্ড চাপতে হবে।

Ctrl+C এর মাধ্যমে ডকুমেন্টের ভিতরে থাকা যেকোন কিছু কপি করা যায়। এজন্য যেটা কপি করবেন সেটা আগে সিলেক্ট করে নিয়ে তারপর সর্টকার্ট কমান্ড চাপতে হবে। শুধু মাইক্রোসফট ওয়ার্ডেই না সকল ক্ষেত্রে এ সর্টকার্ট কমান্ড প্রযোজ্য।

Ctrl+D এই সর্টকার্ট কমান্ডের মাধ্যমে সরাসরি ফন্ট মেনুতে যাওয়া যায়।

Ctrl+E এই সর্টকার্ট কমান্ডের মাধ্যমে সিলেক্টেড অংশকে ডকুমেন্টের একদম মাঝখানে নেয়া যায়। কোন লেখাকে সিলেক্ট করে এই কমান্ড চাপলে সেটা মাঝখানে চলে আসবে। আবার এ কমান্ড চেপে লেখা শুরু করলে মাঝখান থেকে লেখা শুরু হবে।

Ctrl+F– একটা ডকুমেন্টের ভিতরে অসংখ্য শব্দের মাঝে প্রয়োজনীয় শব্দকে খুজে বের করতে এ কমান্ড ব্যবহার হয়। এ কমান্ড দেয়ার পরে যে ডায়ালগ বক্স আসবে সেখানে প্রয়োজনীয় শব্দটি লিখে Enter চাপলে সেই শব্দ যেখানে যেখানে আছে তা দেখিয়ে দিবে। শুধু মাইক্রোসফট ওয়ার্ডেই না সকল ক্ষেত্রে এ সর্টকার্ট কমান্ড প্রযোজ্য।

Ctrl+G ধরুন আপনার ডকুমেন্টে শতাধিক পেজ/পৃষ্ঠা আছে। মাউস দিয়ে কাঙ্খিত পৃষ্ঠাতে যেতে অনেক সময়ের প্রয়োজন। তখন এই কমান্ড ব্যবহার করে কাঙ্খিত পৃষ্ঠার নম্বর লিখে Enter চাপলে সেই পৃষ্ঠায় চলে যাবে।

Ctrl+H- অনেক বড় একটা ডকুমেন্টে কোন নির্দিষ্ট একটা শব্দ ভুল হয়েছে বা তার জায়গায় অন্য শব্দ বসাতে হবে এমন কাজে এই কমান্ড ব্যবহার হয়। এই কমান্ড দিয়ে ডায়ালগ বক্সে প্রথমে যে শব্দ বদলাতে হবে সেটা এবং পরে যে শব্দ দিয়ে বদলাবেন সেটা লিখে Enter চাপলেই হয়ে যাবে।

Ctrl+I এই সর্টকার্ট কমান্ড দিয়ে সিলেক্টেড লেখাকে ইটালিক/বাঁকানো ইফেক্ট দেয়া যায় যেমন এই পুরো লাইনটিতে দেয়া আছে

Ctrl+J এর মাধ্যমে ডকুমেন্টের ভিতরের লেখাকে সিলেক্ট করে সুন্দর ভাবে বিস্তৃত করে দেয়া যায়। অবশ্যই সবগুলো লেখাকে সিলেক্ট করে তারপর কমান্ড চাপতে হবে।

Ctrl+K এটি একটি গুরুত্বপুর্ন সর্টকার্ট কমান্ড। এর মাধ্যমে হাইপারলিঙ্ক ডায়ালগ বক্স আনা যায়। যখন একটি ডকুমেন্টের সাথে অন্য একটি ডকুমেন্ট লিঙ্ক করতে হয় তখন এ কমান্ড প্রয়োজন হয়।

Ctrl+L যদি কোন কারনে লেখা মাঝখানে অথবা ডানদিক থেকে শুরু হয় তখন এই কমান্ড চেপে লেখাকে বাম দিক থেকে শুরু করতে পারবেন।

Ctrl+M ডকুমেন্টের যেখানে কার্সর থাকবে সেখানের লেখাকে মাঝখানে সরিয়ে দেয়ার জন্য এ কমান্ড ব্যবহার হয়।

Ctrl+N এর মাধ্যমে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড চালু থাকা অবস্থায় নতুন একটি ফাকা ডকুমেন্ট তৈরি করা যায়। কাজের ক্ষেত্রে এটা খুব বেশি প্রয়োজন হয়।

Ctrl+O কম্পিউটারে সংরক্ষিত থাকা ডকুমেন্ট ওপেন করার জন্য এ কমান্ড ব্যবহার করা হয়। যেকোন সময় এই কমান্ড চাপলে আপনার সামনে একটি ডায়ালগ বক্স আসবে যেখানে আপনার সেভ করে রাখা ডকুমেন্টগুলো দেখাবে এবং আপনি পছন্দ মতো যেকোন একটা ওপেন করতে পারবেন।

Ctrl+P যেকোন ডকুমেন্ট প্রিন্ট করার জন্য এ কমান্ড ব্যবহার হয়। আপনার কম্পিউটারের সাথে যদি প্রিন্টার সংযুক্ত থাকে তাহলে এ কমান্ড ব্যবহার করে আপনি ডকুমেন্ট প্রিন্ট করতে পারবেন।

Ctrl+Q একটি প্যারাগ্রাফে যতরকম ফরম্যাট চেঞ্জ করা হয় যেমনঃ লাইনের স্পেস কমানো-বাড়ানো, স্কেল এর মাধ্যমে প্যারাগ্রাফের সাইজ ছোট-বড় করা ইত্যাদি। এসব কাজ করার পর যদি মনে হয় এগুলোর প্রয়োজন নেই তাহলে এই কমান্ড চাপলে প্যারাগ্রাফের লেখা আগের অবস্থার ফিরে আসবে।

Ctrl+R লেখার সময় যদি ডান দিক থেকে লেখার প্রয়োজন হয় তখন এ কমান্ড চেপে আপনি লেখাকে ডান দিক থেকে শুরু করতে পারবেন। আবার কোন লাইন বা প্যারাগ্রাফ সিলেক্ট করে এ কমান্ড চাপলে সেটা যেখানেই থাক ডান দিকে চলে যাবে।

Ctrl+S ডকুমেন্টকে কম্পিউটারে সংরক্ষন/সেভ করার জন্য এ কমান্ড ব্যবহার করা হয়। অনেক বেশি এবং গুরুত্বপুর্ন কিছু লেখার মাঝে একটু পর পর Ctrl+S চাপার অভ্যাস রাখতে হবে। সকল কিছু সেভ করার জন্য এই একটা কমান্ডই ব্যবহার হয়।

Ctrl+T প্যারাগ্রাফ এর প্রথম লাইন অক্ষত রেখে বাকি সব লাইনের সামনে স্পেস বাড়ানো জন্য এ কমান্ড ব্যবহার হয়।

Ctrl+U এ কমান্ড ব্যবহার করে সিলেক্টেড অংশকে আন্ডারলাইন করা হয় যেমন এই সম্পুর্ন লাইনটি করা আছে

Ctrl+V কপি করা কোনকিছুকে ডকুমেন্টে পেস্ট করার জন্য এ সর্টকার্ট কমান্ড ব্যবহার করা হয়। শুধু মাইক্রোসফট ওয়ার্ডেই না সকল ক্ষেত্রে এ সর্টকার্ট কমান্ড প্রযোজ্য।

Ctrl+W এ কমান্ডের মাধ্যমে ওপেনকৃত ডকুমেন্টকে কেটে দেয়া হয়। তবে সাবধান থাকতে হবে এ কমান্ড চাপার আগে ডকুমেন্টকে সেভ করে নিতে হবে। তা না হলে সকল লেখাসহ ডকুমেন্টটি চলে যাবে।

Ctrl+X কোন লেখাকে এক যায়গা থেকে অন্য যায়গায় একবারে নিয়ে যাওয়ার সময় এ কমান্ড ব্যবহার হয়। লেখাকে সিলেক্ট করে এ কমান্ড চাপলে লেখাটি সেখান থেকে রিমুভ হয়ে যাবে এরপর Ctrl+V চেপে লেখাটি পেস্ট করতে হবে। শুধু মাইক্রোসফট ওয়ার্ডেই না সকল ক্ষেত্রে এ সর্টকার্ট কমান্ড প্রযোজ্য।

Ctrl+Z ডকুমেন্টের ভিতরের তাৎক্ষনিক ভুলকে সংসোধন করার জন্য এ কমান্ড ব্যবহার করা হয়। এ কমান্ড চাপলে সর্বশেষ যে কাজটি করেছেন সেটা মুছে যাবে। এভাবে যতবার আপনি এ কমান্ড ব্যবহার করবে ততবার একেরপর এক তথ্য আগের অবস্থায় ফিরে যেতে থাকবে। শুধু মাইক্রোসফট ওয়ার্ডেই না সকল ক্ষেত্রে এ সর্টকার্ট কমান্ড প্রযোজ্য এবং অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন।

Ctrl+Y– Ctrl+Z এর কাজ আগে দেখানোর অর্থ হচ্ছে Ctrl+Z দিয়ে ভুল সংসোধন করতে গিয়ে যদি বেশিবার Ctrl+Z চাপা হয় তাহলে সেটা সংসোধন করার জন্য রয়েছে Ctrl+Y কমান্ড।

এখন দেখি নিই আরোকিছু সর্টকার্ট কমান্ড

Ctrl+Enter- সাধারন্ত একটা পেজে লেখা শেষ হলে কার্সর পরের পেজে যায়। কার্সর পেজের যাখানেই থাকুক না কেন এ কমান্ডের মাধ্যমে তা সেখানে ফাকা রেখে একদম পরের পেজে চলে যাবে।

Ctrl+Alt+B- এর মাধ্যমে বিজয় বাংলা কিবোর্ড চালু এবং বন্ধ করা হয়। প্রথমে একটি বাংলা ফন্ট সিলেক্ট করে এ কমান্ড চাপলে বিজয় চালু হয়ে যাবে এবং তখন বাংলা লিখতে পারবেন। আবার এ কমান্ড চেপে বিজয় বন্ধ করে ইংরেজি ফন্ট সিলেক্ট করে ইংরেজি লিখতে পারবেন।

Ctrl+Shift+L- যদি কোন লেখার সামনে বুলেট/সিম্বল প্রয়োজন হয় তখন এই কমান্ড ব্যবহার করলে লেখার সামনে বুলেট/সিম্বল চলে আসবে।

Ctrl+Delete- এ কমান্ডের মাধ্যমে কার্সরের ডানদিকের শব্দ পুরোটা কেটে দেয়া যায়।

Ctrl+Backspace- এ কমান্ডের মাধ্যমে কার্সরের বামদিকের শব্দ পুরোটা কেটে দেয়া যায়।

Ctrl+End- আপনি ডকুমেন্টের যেখানেই থাকুন না কেন এ কমান্ডের মাধ্যমে ডকুমেন্টের একদম শেষে চলে যেতে পারবেন।

Ctrl+Home- এ কমান্ডের মাধ্যমে আপনি ডকুমেন্টের একদম প্রথমে যেতে পারবেন।

Ctr+F2- কোন কিছু প্রিন্ট করার পুর্বে প্রিন্ট প্রিভিউ দেখা প্রয়োজন। এ কমান্ডের মাধ্যমে ডকুমেন্টের প্রিন্ট প্রিভিউ দেখা যায়।

Shift+Alt+D- ডকুমেন্টের যেকোন যায়গায় কার্সর রেখে এ কমান্ড চাপলে তাৎক্ষনিক সেই দিনের দিন তারিখ চলে আসবে।

Shift+Alt+T- ডকুমেন্টের যেকোন যায়গায় কার্সর রেখে এ কমান্ড চাপলে তাৎক্ষনিক ভাবে তখন যে সময় সে সময় চলে আসবে।

এই ছিল আজকের পর্বে, এতক্ষন ধৈর্য ধরে সাথে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আশাকরি সবার কাছে এটি ভাল লাগবে। আবার দেখা হবে নতুন কোন পর্বে ততক্ষন সবাই ভাল থাকবে সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

Facebook Comment